সর্বশেষ সংবাদ :

লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে : প্রধানমন্ত্রী

Share Button

image_136268.hasina-27

রিপোর্টারঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম,ঢাকা
০৪ অক্টোবর ২০১৪

হজ ও তাবলীগ জামাত নিয়ে বিরূপ মন্তব্যের কারণে আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “কেউ যদি অবিবেচকের মতো কথা বলে তার কথা গ্রহণযোগ্য হবে না। লতিফের ব্যাপারে যা বলেছি তাই হবে। তার বিরুদ্ধে যে যে ব্যবস্থা নেয়া দরকার তাই নেয়া হবে।”
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমি মনে করি তার মন্তব্যে সরকার বেকায়দায় পড়েনি তিনি নিজেই বেকায়দায় পড়েছেন। তার কাজের খেসারত তাকেই দিতে হবে।”
তিনি আরও জানান, লতিফ সিদ্দিকী মন্ত্রীসভায় থাকবেন না।
নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৬৯তম অধিবেশনে অংশগ্রহণ বিষয়ে শুক্রবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্যকালে তিনি এমব কথা বলেন।
বাংলাদেশের যেসব মুসলমান হজব্রত পালন করতে গেছেন তাদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের দেশের যেসব মুসলমান হজ পালন করতে গেছেন তারা যেন হজ পালন করে সহি-সালামতে দেশে ফিরতে পারেন।” এ সময় তিনি দুর্গাপূজা উপলক্ষে হিন্দুধর্মের সবাইকে শুভেচ্ছা জানান।
প্রধানমন্ত্রী আমেরিকা ও বৃটেনে তার ১০ দিনের সফর শেষে সকালে সরাসরি ফ্লাইটে সিলেটে আসেন। সেখানে এক ঘণ্টার যাত্রাবিরতি শেষে তিনি ঢাকায় ফেরেন।
সিলেটে দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী জানান, লতিফ সিদ্দিকীকে শুধু মন্ত্রিসভা নয় দলের সব পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হবে। ঢাকা বিমানবন্দরে সাংবাদিকরা তাকে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করলে তিনি জানান, আগামীকাল বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বিস্তারিত বলবেন।
প্রধানমন্ত্রী ৬৯তম জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে গত ২২ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্কে যান। তিনি সেখান থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর ব্যক্তিগত সফরে লন্ডনে যান। প্রধানমন্ত্রী গত ২৭ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণ দেন।
প্রধানমন্ত্রী আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং ফার্স্ট লেডি মিচেল ওবামার দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে যোগ দেন। তিনি জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুনের দেয়া সংবর্ধনা ও ভোজ সভায়ও যোগ দেন।
শেখ হাসিনা জাতিসংঘ জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন-২০১৪ এর উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দেন এবং শীর্ষ সম্মেলনের ন্যাশনাল অ্যাকশন অ্যান্ড অ্যাম্বিশন অ্যানাউন্সমেন্ট সেশনে ভাষণ দেন। তিনি গ্লোবাল এডুকেশন ফার্স্ট ইনিশিয়েটিভের উচ্চ পর্যায়ের আলোচনায়ও অংশ নেন।
শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গেও বৈঠক করেন। বৈঠকে তিনি ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে সহায়তা করার জন্য নতুন ব্যবসায়ী অংশীদারিত্ব সৃষ্টির আহ্বান জানান।
প্রধানমন্ত্রী কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের এক আলোচনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন এবং জাতিসংঘ সদর দফতরে আন্তর্জাতিক শান্তিরক্ষী সংক্রান্ত আয়োজিত এক সম্মেলনে যোগ দেন।
তিনি জাতিসংঘে বাংলাদেশের সদস্যপদ লাভের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে জাতিসংঘ সদর দফতরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানেও যোগ দেন।
প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে যোগদানের পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী ইরনা সোলবার্গ, বেলারুশের প্রধানমন্ত্রী মিকাল ভি মায়নিকোভিচ এবং নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশিল কৈরালার সঙ্গে পৃথক বৈঠক করেন। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে তিনি প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও যোগ দেন।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs