সর্বশেষ সংবাদ :

এই সব দিন রাত্রির টুনির আত্মহত্যা!

Share Button
5_160767
রিপোর্টঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০১৪।
প্রায় দুই যুগ আগে সারা দেশের অসংখ্য মানুষ নাট্যকার হুমায়ূন আহমেদের কাছে চিঠি লিখেছিলেন টুনির প্রাণ রক্ষার জন্য। জটিল রোগে আক্রান্ত টুনির জীবন বাঁচাতে চোখের পানি ফেলেছিল অনেকে। দেশের বিভিন্ন স্থানে মিছিলও হয়েছিল। বিটিভির জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটক ‘এই সব দিন রাত্রি’র টুনি চরিত্রে রূপদানকারী সেই নায়ার সুলতানা লোপা আত্মহত্যা করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ গুলশান-১ নম্বর সেকশনের ১২৬ নম্বর সড়কের একটি বাড়ি থেকে নায়ার সুলতানা লোপার লাশ ঘরের বেডরুমের ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থা থেকে উদ্ধার করে। এদিকে লাশ উদ্ধারের পরপরই নায়ারকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে স্বামী আলী আমিনের বিরুদ্ধে তার মা রাজিয়া সুলতানা গুলশান থানায় হত্যা মামলা করেছেন। ওই মামলায় পুলিশ আলী আমিনকে গ্রেফতার করেছে।
নায়ারের মা রাজিয়া সুলতানা অভিযোগ করেন, কারণে-অকারণে প্রায়ই নায়ারকে মারধর করত আলী আমিন। এ নিয়ে পারিবারিকভাবে একাধিকবার বৈঠক বসে সাবধান করা হয় আমিনকে। তারপরও নায়ারের ওপর নির্যাতন থামেনি বরং বেড়েছে। আলী আমিন তাকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যার পর ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করেছে। নিহতের ভাই আদনান রহমান বলেন, ঘটনার দুই দিন আগেও নায়ার তার স্বামীর সম্পর্কে তাকে অভিযোগ করেছিল। তিনি বলেন, নায়ারের মতো হাস্যোজ্জ্বল মেয়েটি এভাবে আত্মহত্যা করতে পারে তা তারা বিশ্বাস করেন না। তিনি জানান, আলী আমিন চট্টগ্রামে বেঙ্গল ইন্ডাস্ট্রিজে কর্মরত। ৩৫ বছর বয়সী নায়ারের আনহা আমিন (৯) এবং আজারি আমিন (৬) নামে দুটি কন্যাসন্তান রয়েছে। গুলশান-১ নম্বরের ১২৬ নম্বর সড়কের ১২ নম্বর বাড়ির সি-৩ ফ্ল্যাটে দুই মেয়ে নিয়ে থাকতেন নায়ার। সম্প্রতি ওই ফ্ল্যাটটি তার স্বামী কেনেন। স্ত্রীর নামে ফ্ল্যাটটি কেনার কথা থাকলেও শেষমেশ ফ্ল্যাটটি নিজের নামে কেনে আলী আমিন। এ নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে দ্বন্দ্ব বেড়ে যায়। বৃহস্পতিবার রাতে ওই ফ্ল্যাট থেকেই নায়ার সুলতানা লোপার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এদিকে এ ঘটনার পরপরই নায়ারের মা রাজিয়া সুলতানা গুলশান থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় রাতেই গ্রেফতার হন আলী আমিন।
গুলশান থানার ওসি রফিকুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, ঘরের মধ্যে ফ্যানে ঝুলন্ত অবস্থায় নায়ারের লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশের পা খাটে ঠেকানো অবস্থায় ছিল। প্রাথমিকভাবে তার মৃত্যুকে আÍহত্যা বলে অনুমান করা হচ্ছে। তবে তার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানতে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গুলশান থানার এসআই আসাদুজ্জামান বলেন, নিহতের গলার ডান দিকে ও বাম হাতে আঘাতের কালো দাগ রয়েছে। তবে এ আঘাত আগের কিনা তা জানতে ময়নাতদন্ত রিপোর্টের জন্য তারা অপেক্ষা করছেন। আলী আমিনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলেও তিনি জানান।
’৯০-এর দশকে বিশিষ্ট নাট্যকার হুমায়ূন আহমেদের ‘এই সব দিন রাত্রি’তে টুনি চরিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক পরিচিতি পান নায়ার সুলতানা লোপা।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs