সর্বশেষ সংবাদ :

আজ বসছে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক

Share Button

a.lig_39879

রিপোর্টঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম ঢাকা, ১২ অক্টোবর ২০১৪।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণ, সাংগঠনিক পুনর্গঠন ও কর্মসূচি ঠিক করতে আজ বসছে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক। সন্ধ্যায় দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে এ বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ এই তিন ইস্যু ছাড়াও বিরোধী জোটের সম্ভাব্য আন্দোলন এবং দলীয় কৌশল নিয়েও আলোচনা হবে। দলের বিতর্কিত নেতাদের বিষয়ে কড়া বার্তা ও নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দলীয় সূত্র জানিয়েছে, মহানবী হযরত সা. ও হজ নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য এবং প্রধানমন্ত্রী পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়কে হেয় করায় আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে দলীয় সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হবে বৈঠকে। এটিই আজকের বৈঠকের এক নম্বর ইস্যু। লতিফ সিদ্দিকীকে দলের প্রেসিডিয়াম থেকে বাদ দেয়ার বিষয়টি আগেই চূড়ান্ত হয়ে আছে। তবে তিনি দলের প্রাথমিক সদস্য হিসেবে থাকবেন কি না এ বিষয়ে আলোচনা হবে বৈঠকে। দলীয় সদস্য হারালে তিনি সংসদ সদস্য পদও হারাবেন। এতে নয়া জটিলতার সৃষ্টি হবে। এ বিষয়ে দলের নেতাদের পরামর্শ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হলে তার বক্তব্যে সৃষ্ট ক্ষোভ ও অসন্তোষ দূর করা যাবে তা নিয়েও দলের নীতিনির্ধারণী ফোরামে আলোচনা হবে। লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্যে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও ক্ষুব্ধ। তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়ে কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্যরাও দাবি তুলবেন। একই সঙ্গে এ ধরনের বিতর্কিত অন্য নেতাদের কড়া বার্তা দেয়ার পরামর্শ দেবেন তারা। কার্যনির্বাহী সংসদের আগের বৈঠকে দলীয় কর্মকাণ্ড গতিশীল করতে ১০টি সাংগঠনিক টিমের সফরসূচি নিয়ে আলোচনা হয়। তবে এ পর্যন্ত তা চূড়ান্ত হয়নি। এ বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা করে সাংগঠনিক সফরসূচি চূড়ান্তকরণ ও আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সারা দেশে তৃণমুল পর্যায়ে কাউন্সিল শেষ করে কমিটি করার বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হবে। এছাড়া দলের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনগুলোর কাউন্সিল ও কমিটি গঠনের বিষয়েও আলোচনা হতে পারে সভায়। বৈঠকে ৩রা নভেম্বর জেল হত্যা দিবসের কর্মসূচিও চূড়ান্ত করা হবে। আলোচনা হবে বিরোধী জোটের সম্ভাব্য আন্দোলন ও সরকার এবং ক্ষমতাসীন জোটের করণীয় নিয়ে। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় বৈঠক শুরু হবে। এতে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সকল সদস্যকে যথাসময়ে উপস্থিত থাকার জন্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম অনুরোধ জানিয়েছেন।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs