সর্বশেষ সংবাদ :

আবার নিউ ইয়র্কে ফিরলেন লতিফ সিদ্দিকী

Share Button

93068_1

রিপোর্টারঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম,ঢাকা
০৩ অক্টোবর ২০১৪

চারদিন মেক্সিকো সফর শেষে নিউইয়র্কে ফিরেছেন লতিফ সিদ্দিকী। মেক্সিকোর হোটেলে দু’রাত কাটিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ডালাস হয়ে তিনি নিউইয়র্কে ফিরে সস্ত্রীক দিনাতিপাত করছেন। গত ২ অক্টোবর বৃহষ্পতিবার নিউইয়র্ক-ঢাকা বিমানের টিকেট রি-কনফার্ম করা হলেও তিনি দেশে না ফেরারই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে তাঁর এক ঘনিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। খবর বার্তা সংস্থা বাংলা প্রেস’র।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর রবিবার নিউইয়র্কে টাঙ্গাইল সমিতির অনুষ্ঠানে অশালীন ও অযৌক্তিক বক্তব্য দিয়ে সোমবার তিনি উড়াল দেন প্রতিবেশী দেশ মেক্সিকোতে। তাঁর ওই বক্তব্যের ফলে ইতোমধ্যে বাংলাদেশের মন্ত্রীসভা থেকে তাঁকে অপসারিত হয়। এখন তিনি যুক্তরাষ্ট্র কিংবা কানাডার রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনার চিন্তা ভাবনা করছেন বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

৩০ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাজধানী মেক্সিকো সিটি থেকে প্রায় ৫শ’ কিলোমিটার দূরবর্তী গুয়াদালাজারা শহরে তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক বিশ্ব সম্মেলনে (ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন আইসিটি) যোগদান এবং বাংলাদেশের পক্ষে ‘গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ নিজহাতে গ্রহণ করার কথা ছিল মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকীর। ২৯ সেপ্টেম্বর এখানে পৌঁছার পর থেকে পহেলা অক্টোবর বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসের উদ্দেশ্যে মেক্সিকো ছেড়ে যাবার আগ পর্যন্ত লতিফ সিদ্দিকীকে ন্যূনতম বিচলিত দেখা যায়নি বলে জানা গেছে।

মেক্সিকোতে পৌঁছার পর থেকেই সফরসঙ্গী স্ত্রী প্রতিমুহূর্তে তাকে আপডেট দিয়ে যাচ্ছিলেন অনলাইন নিউজপোর্টালগুলো থেকে। তাদের দেখভালের দায়িত্বে নিয়োজিতদের ভাষ্যমতে, ঘন্টায় ঘন্টায় পরিস্থিতি লতিফ সিদ্দিকীর প্রতিকূলে ‘রান’ করলেও অত্যন্ত ধীরস্থির ও স্বাভাবিক ছিলেন তিনি। “অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানস্থলে লতিফ সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন এবং মঞ্চে না উঠে তিনি মঞ্চের সামনে নিজ আসনে বসেছিলেন। এইমর্মে ঢাকা থেকে সংবাদ প্রকাশিত হলেও মূলতঃ মঙ্গলবার সন্ধ্যার ঐ অনুষ্ঠানস্থলেই যাননি তিনি।

তবে ঠিক ঐ সময় গুয়াদালাজারা শহরেই ছিলেন লতিফ সিদ্দিকী এবং হোটেলে শুয়ে-বসে সময় অতিবাহিত করেন। প্রধানমন্ত্রীর কঠোর সিদ্ধান্তের কথা তাকে জানানো হলেও বিন্দুমাত্র ‘নার্ভাসনেস’ পরিলক্ষিত হয়নি সাবেক এই জাঁদরেল নেতার মাঝে। বুধবার মেক্সিকো সিটি থেকে সস্ত্রীক ডালাস রওয়ানা হয়ে যান লতিফ সিদ্দিকী। সেখান থেকে ফিরে আসেন আবার নিউইয়র্কে। ২ অক্টোবর বৃহষ্পতিবার জন এফ কেনেডি বিমানবন্দর থেকে ঢাকার ফ্লাইট ধরার কথা থাকলেও উদ্ভূত পরিস্থিতিতে নিউইয়র্কেই ক’দিন থাকার সিদ্ধান্ত নেন লতিফ সিদ্দিকী। লতিফ সিদ্দিকীর বোন এবং মেয়ে যেহেতু আগে থেকেই টরন্টোর অধিবাসী, সেক্ষেত্রে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় তিনি তাদের স্থায়ী আতিথেয়তা নিতে পারেন।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs