সর্বশেষ সংবাদ :

আত্মসমর্পণ করবেন মেয়র আরিফ!

Share Button

18081

স্টাফ রিপোর্টারঃ দৈনিক মুক্তকন্ঠ
ঢাকা, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৪।

সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হওয়ায় আদালতে আত্মসমর্পণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। রোববার তার ঘনিষ্ট একটি সূত্র এই আভাস দিয়েছে। আরিফ আত্মসমর্পণ করে আইনী লড়াইয়ের মাধ্যমে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সেরেও রেখেছেন বলে জানায় ওই সূত্রটি। মেয়র আরিফ কয়েক দিনের মধ্যেই হবিগঞ্জ আদালতে গিয়ে আত্মসমর্পণ করবেন।

রোববার কিবরিয়া হত্যা মামলার সম্পূরক চার্জশিট আদালতে গৃহিত হয়। সিআইডি সিলেট অঞ্চলের এএসপি মেহেরুন নেছা পারুলের দেয়া ওই সম্পূরক চার্জশিটে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ছাড়াও খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব আবুল হারিছ চৌধুরী ও হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জিকে গৌছসহ নতুন করে ১১ জনকে আসামি করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

এর আগে গত ১৩ নভেম্বর হবিগঞ্জ আদালতে কিবরিয়া হত্যা মামলার তৃতীয় দফা সম্পূরক চার্জশিট দেয়ার পর থেকেই আত্মগোপনে চলে যান সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। আত্মগোপনে থেকেই তিনি হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু আগাম জামিন পাওয়ার সম্ভাবনা না থাকায় মেয়রের আইনজীবীরা তাকে সংশোধিত সম্পূরক চার্জশিট আদালতে গৃহিত হওয়ার পর আত্মসমর্পণ করার পরামর্শ দেন।

মেয়র আরিফের এক ঘনিষ্ট সূত্র জানায়, তিনি হবিগঞ্জ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইবেন। সেখানে জামিন না পেলে উচ্চ আদালতে জামিনের চেষ্টা করা হবে।

রোববার রাত পৌনে ১১টায় বাংলামেইলের সঙ্গে আলাপকালে মেয়র আরিফের একান্ত আস্থাভাজন সিলেট ল’ কলেজ ছাত্রদলের সাবেক ভিপি ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা মাহবুবুল হক চৌধুরী জানান, রোববার আদালতে চার্জশিট গৃহিত হওয়ার পর আরিফের সাথে তার কথা হয়েছে।

মেয়রের বরাত দিয়ে মাহবুব বলেন, ‘আরিফ চৌধুরী ভালো আছেন, সুস্থ আছেন। এই মামলায় তিনি বিচলিত নন। তিনি শিগগিরই আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইবেন। পরিবারের সদস্যদেরকে মেয়র বলেছেন তার জন্য চিন্তা না করতে।’

উল্লেখ্য, কিবরিয়া হত্যা মামলার সম্পূরক চার্জশিটে আরিফকে আসামি করার পর থেকেই বিএনপি ছাড়াও সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের ব্যানারে আন্দোলন চলে আসছে। চার্জশিট থেকে আরিফের নাম প্রত্যাহারের দাবিতে সিলেটে হরতালও পালন করা হয়।

এদিকে চার্জশিট থেকে আরিফের নাম প্রত্যাহারের দাবিতে শিগগিরই নতুন কর্মসূচির ডাক দেবেন বলে বাংলামেইলকে জানিয়েছেন সিলেট পেশাজীবী সমন্বয়ন পরিষদের আহ্বায়ক শিক্ষাবীদ লে. কর্নেল (অব.) আতাউর রহমান পীর।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs