সর্বশেষ সংবাদ :

গতকাল রাতে ঢাকা ছাড়লেন বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনা

Share Button
imagesgt
রিপোর্টঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম
ঢাকা, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৪।
শেষপর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষাৎ ছাড়াই গতকাল রাতে ঢাকা ছাড়লেন বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনা। তবে বিদায়ী সাক্ষাৎ হোক বা না হোক-ঢাকার কার্যক্রমে ‘সন্তুষ্টি’ নিয়েই গতকাল যুক্তরাষ্ট্রগামী বিমানে উঠেন মজিনা। ঢাকা মিশন শেষে অবসরগ্রহণ করতে যাচ্ছেন বর্ষীয়ান এই মার্কিন কূটনীতিক। ঢাকা ত্যাগের আগে মজিনা বলেন, এই দারুণ ও সমৃদ্ধ জাতি এবং এর চমৎকার, কঠোর পরিশ্রমী, সৃজনশীল, উদার, উদ্যোগী ও সহনশীল জনগণকে ছেড়ে যখন চলে যাচ্ছি, তখন আমার হৃদয় ভারাক্রান্ত হয়ে উঠছে, যাদের আমি জেনেছি বাংলাদেশের ৬৪টি জেলায় আমার সফরের মাধ্যমে।
যদিও আমার পরবর্তী বসতি অনেক দূরে, তবে বাংলাদেশকে সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলতে আমাদের সম্মিলিত লক্ষ্য পূরণে সাহায্য করতে আমার পক্ষে যত দূর সম্ভব আমি করে যাব। আবার দেখা হবে! বিদায়, চমৎকার বাংলাদেশ।
প্রসঙ্গত, কূটনৈতিক রেওয়াজ অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, সংসদের বিরোধী নেতা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ চেয়ে পররাষ্ট্র দফতরে কূটনৈতিকপত্র পাঠায় ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস। এরই মধ্যে গত ১৫ ডিসেম্বর প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আনুষ্ঠানিকভাবে তার কাছ থেকে বিদায় নিয়েছেন বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রদূত। পরদিন বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদ এবং গত বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ শেষ করেন মজিনা। প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতের অপেক্ষায় থাকাকালে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ সারেন ড্যান মজিনা। এর মাঝেই এক ঝটিকা সফরে দ্বিতীয় বারের মতো পাবনা যান তিনি। সেখানে তিন কৃষকের সঙ্গে বুক মিলিয়ে বিদায় নেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর সাথে তার প্রত্যাশিত সাক্ষাৎ ছাড়াই তাকে ঢাকা ত্যাগ করতে হলো।
উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ২৪ নভেম্বর তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জিল্লুর রহমানের কাছে পরিচয়পত্র পেশ করার মধ্য দিয়ে ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব নিয়েছিলেন ড্যান মজিনা। ওই বছরের ১ ডিসেম্বর তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেছিলেন। সবশেষে তিনি গত বছরের নভেম্বরে মার্কিন সহকারী মন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়ালের প্রথম ঢাকা সফরকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন। এর আগে পরে বহুবার চেষ্টা হয়েছে একান্ত সাক্ষাতের জন্য কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর তরফে সময় দেয়া হয়নি। ওই বিদায়ী সাক্ষাৎ হোক বা না হোক-ঢাকার কার্যক্রমে ‘সন্তুষ্টি’ নিয়েই গতকাল যুক্তরাষ্ট্রগামী বিমানে উঠলেন মজিনা।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs