সর্বশেষ সংবাদ :

চিকিৎসার নামে জীবন নিয়ে জুয়া

Share Button
doctor
স্টাফ রিপোর্টার: ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৪।
রাজধানীর আগারগাঁওয়ে শাহজালাল জেনারেল হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে তিন ভুয়া চিকিৎসকসহ ৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে হাসপাতালটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। র‌্যাবের একজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।
ওই হাসপাতালের মালিকসহ ভুয়া তিন চিকিৎসককে ২ বছর করে কারাদণ্ড এবং ১ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়, অনাদায়ে আরও তিন মাস করে কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।
এ ছাড়া হাসপাতালের ভুয়া নার্স ও টেকনিশিয়ানদেরও জেল-জরিমানা করা হয়েছে।
র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার পাশার বক্তব্যানুযায়ী, হাসপাতালটির অনুমোদনের মেয়াদ দেড় বছর আগে শেষ হয়েছে। এ ছাড়া ১০ শয্যার একটি হাসপাতালে তিনজন ডাক্তার থাকা বাধ্যতামূলক। অথচ এখানে কোনো ডাক্তারই নেই!
সাজাপ্রাপ্তদের মধ্যে এমন একজন কথিত ডাক্তার রয়েছে, যে শুধুমাত্র এইচএসসি পাস। যে কিনা ওই হাসপাতালের প্রধান চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছে। সে অপারেশনসহ সব ধরনের রোগী দেখে এবং ব্যবস্থাপত্র দিয়ে আসছিল। অভিযানের সময় ওই হাসপাতালে অপারেশনের ৮ জন রোগী ছিল।
এখন প্রশ্ন হলো- যে হাসপাতালটির অনুমোদন দেড় বছর আগেই শেষ হয়েছে— সেখানে কী করে প্রতিষ্ঠানটি চলমান ছিল? আলোচ্য অভিযান না চললে জানাই যেত না যে, যারা এখানে ডাক্তার, নার্স ও টেকনিশিয়ান সেজে চিকিৎসা করছিল, তারা আদৌ কেউ-ই সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বৈধ যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তি নয়। বলা যায়, চিকিৎসার নামে একটি চক্র মানুষকে নিয়ে এখানে জীবন-মৃত্যুর জুয়া খেলে আসছিল। আমরা জানি না বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে এ ধরনের অপরাধের সাজার মেয়াদ বা ধরন কী? তবে আমাদের সাধারণ বিবেচনায় যাদের অপারেশন করার আদৌ কোনো যোগ্যতা নেই, চিকিৎসার নামে হলেও তারা যদি মানবদেহে অস্ত্রোপচার করে বা অপারেশন চালায়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে খুন-জখমের অভিযোগও আনা যেতে পারে। আমাদের ধারণা, শুধু ওই হাসপাতালটি নয়; রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে চিকিৎসার নামে অসংখ্য ভুয়া প্রতিষ্ঠান এবং ভুয়া ডাক্তার-নার্স মানুষের জীবন নিয়ে জুয়া খেলছে। তাদের সঙ্গে সরকারের বিভিন্ন বিভাগের যোগসাজশ না থাকলে দিনের পর দিন এ ধরনের কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। এ ধরনের অর্থলোভী প্রতারকদের দমন করার জন্য তাদের শক্তির উৎসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার বলে আমরা মনে করি।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs