সর্বশেষ সংবাদ :

আগামী মার্চ-এপ্রিলের মধ্যেই ক্ষমতার ছাড়তে হবে:- গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

Share Button

1390561019_43565

রিপোর্টঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম ঢাকা, ২৩ নভেম্বর ২০১৪।

বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, এ দেশের দোকানি থেকে শুরু করে রিক্সাওয়ালারা পর্যন্ত বলছে আগামী মার্চ-এপ্রিলের মধ্যেই ক্ষমতার সিংহাসন ছাড়তে হবে ক্ষমতাসীন স্বৈরতান্ত্রিক সরকারকে। জনগণ যদি তাদের না চায় তবে তারা কিভাবে ক্ষমতা দখল করে বসে থাকবে। জিজ্ঞাসা করলে এ ব্যাপারে কেউ মুখ খোলেনি কিভাবে তারা লক্ষ্যে পৌঁছাবে। গয়শ্বর রায় বলেছেন, আমাদের অবশ্যই নিজস্ব কিছু কৌশল আছে কিন্ত সেগুলো তো প্রকাশ করা যাবে না। শুধু জেনে রাখা দরকার মার্চ-এপ্রিলে পালাবদল হবে।

বিএনপি সমর্থিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এমাজউদ্দিন গয়েশ্বর চন্দ্রের সাথে একাত্মতা পোষণ করেন। তিনি বলেন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান যদি যথার্থ হয় এবং আমার চিন্তা যদি ঠিক থাকে তবে মার্চ-এপ্রিলে দেশের অবস্থার পরিবর্তন অবশ্যই হবে। জনগণের অংগগ্রহণে সূচনা হবে নতুন এক অধ্যায়ের। আমি তারেক’র নতুন দিনের অপেক্ষায় আছি। এ ব্যাপারে আপনি কিভাবে নিশ্চিত হয়েছেন জিজ্ঞাসা করা হলে বারবারই এড়িয়ে গেছেন এমাজ উদ্দিন। এখনো দলের ভিতর হতাশা বিরাজ করছে । একজন জেষ্ঠ নেতা বলেন, আমরা আমরা আমাদের কৌশল সম্পর্কে কিছু বলতে চাচ্ছি না। আমরা কিভাবে আন্দোলন করবো সেটা একান্তই দলীয় ব্যাপার । তবে কাউকে কিছু না বললেও তৃণমূলসহ সকল স্তরের নেতা কর্মীদের অভিযান সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থাকা একান্তই জরুরি। সম্পতি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া তৃণমূলসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রাজনৈতিক সমাবেশ করেন। দলের কর্মীদের প্রতি তিনি বরাবরের মতোই বলেন, দলকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রত্যাহারের পর বিএনপি দলকে পুনঃগঠনের জন্য জোর চেষ্টা চালায়। ইতিমধ্যে ১০ মাস অতিবাহিত হলেও কাঙ্খিত পরিবর্তন আসেনি দলের মধ্যে।দলটি ৯টি সহযোগি সংগঠনের ২টির কমিটি ঘোষণার পরপরই বিরোধ দেখা দেয় এবং অন্য ছয়টির কমিটির মেয়াদ এক বছর আগেই শেষ হয়ে গেছে কখন নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয় কেউই বলতেই পারেনি। শ্রমিক দল এবং ছাত্র দলের কমিটি গঠন করা হলে বঞ্চিত ও ক্ষতিগ্রস্ত নেতাদের রোষানলের মুখে পড়ে দলটিকে। তৃণমূল পর্যায়ের নেতাদের দাবি দলের নেতাকর্মীরা তাদের কথা রাখেনি। তারা মনে করে দলের এই নড়বড়ে অবস্থায় সরকার পতনের ‘শক্তিশালী আন্দোলন’ করা সম্ভব নয়। রুহুল কুদ্দুস তালুকদার বলেন, আমরা চাই কাল থেকেই আন্দোলন শুরু হোক কিন্তু বুঝতে পারছি না নেত্রী কেন বিলম্ব করছেন। আমরা সবাই শুধু নেত্রীর সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়। ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা থেকে একজন ছাত্রদল নেতা বলেন, যে পরিস্থিতিতে দেশের শীর্ষ নেতারা ঘর থেকে বের হতে পারছে না এ পরিস্থিতিতে রাস্তায় কিভাবে নামবে। তবে বিশেষ সূত্রে জানা গেছে আন্দোলনের প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে দলকে গুছিয়ে নেবে বিএনপি।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs