সর্বশেষ সংবাদ :

কুমিল্লা-২ আসনে আ’ লীগের ৭, বিএনপি’র ৫

Share Button
রিপোর্ট:-দৈনিক মুক্তকন্ঠ,
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮। সময়: ১১,১০,PM,

হোমনার একটি পৌরসভা এবং ৯টি ইউনিয়ন আর তিতাসের ৯টি ইউনিয়ন নিয়ে কুমিল্লা-২ আসন। দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির দূর্গ হিসেবেই পরিচিতি রয়েছে কুমিল্লা-২ আসনের। ১৯৭৩ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন আওয়ামীলীগের প্রার্থী মোজাফফর আলী। এরপর দীর্ঘ ৪৪ বছরেও বিজয়ের মুখ দেখেনি আওয়ামীলীগ। এ আসন থেকে বিএনপির এম কে আনোয়ার পাঁচবার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। কুমিল্লা-২ আসনটিতে ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত প্রতিটি নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। ২০১৪ সালে বিএনপি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ না করায় মহাজোট প্রার্থী(জাতীয় পার্টির) মো. আমির হোসেন ভূইয়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস) আসন থেকে জাতীয় পার্টির ১, আওয়ামী লীগের ৭ ও বিএনপি’র ৫ প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাশী।

আওয়ামীলীগঃ এই আসনে আওয়ামীলীগ থেকে মাঠে নেমেছেন আওয়ামীলীগের হোমনা উপজেলা সভাপতি, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও দল থেকে একাধিকবার মনোনয়ন প্রাপ্ত দানবীর অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ, নিটল নিলয় গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ওমেন্স চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সেলিমা আহমাদ মেরী, নবাগত আলোড়ন সৃষ্টিকারী আওয়ামীলীগ নেতা এনামুল হক ইমন, তিতাস উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার, হোমনা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্র নেতা এ.কে.এম. সিদ্দিুকুর রহমান আবুল, কুমিল্লা উত্তর জেলা যুব লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সারওয়ার হোসেন বাবু, আলহাজ মো. শাহ্ আলমসহ ৭ নেতা।

অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ বলেন, আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর বিশ্বাসী উনি আমাকেই মনোনয়ন দিবেন বলে আমি আশাবাদি। এবং তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা আমার সাথে আছে এবং আগামী নির্বাচনে এ আসনটি পূনরুদ্ধারকরে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দেব ইনশাল্লাহ।

সেলিমা আহমাদ মেরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নারী নেতৃত্বের বিকাশ ঘটাতে আহ্বান জানিয়েছেন। তাই আমি একজন নারী সংগঠক হিসেবে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন চাইব এবং আমি আশাবাদি জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দিবেন। এবং আমি এ আসনটি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিব ইনশাল্লাহ।

আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী তিতাস উপজেলা পরিষদের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. পারভেজ হোসেন সরকার বলেন, বিগত দিনে স্থানীয় রাজনীতিতে ত্যাগের মহিমায় নিজেকে তুলে ধরেছি। পিতার সম্পদ বিক্রয় করে মানুষের সেবায় ব্যয় করেছি। আগামী দিনেও এ ধারাবাহিকতা ধরে রেখে মানুষের সেবা করতে চাই। সে কারণে আমি মনোনয়ন চেয়ে বিফল হবোনা এটা আমার ও সমর্থকদের দৃঢ় বিশ্বাস।

বিশিষ্ট আওয়ামীলীগ নেতা ও সফল ব্যবসায়ী মো. এনামুল হক ইমন বলেন, দলের মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে আমি আশাবাদি। সে লক্ষ্য সামনে রেখে হোমনা-তিতাসের জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে আওয়ামীলীগ এবং অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে আমার নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে।

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. সারওয়ার হোসেন বাবু বলেন, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যারা দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ ও সংগঠক হিসেবে তৃণমূল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের সুখে-দুখে পাশে থাকে এমন নেতাদেরকে মনোনয়ন দেয়া হবে। সে হিসেবে আমি মনোনয়ন পাব বলে শতভাগ আশাবাদি।

বিএনপিঃ এ আসন থেকে চার বারের নির্বাচিত সাবেক এমপি ও বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং সাবেক মন্ত্রী এম কে আনোয়ার গত ২৩ অক্টোবর বার্ধক্য জনিত কারণে মৃত্যু বরণ করলে হতাশায় পড়ে যায় এ আসনের বিএনপি’র নেতাকর্মীরা। সম্প্রতি এম.কে আনোয়ারের বড় ছেলে মাহমুদ আনোয়ার নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ায় স্বস্তি ফিরে আসলেও হাতাশা কাটেনি দলের নেতাকর্মীদের মাঝে।

তবে বিএনপির আরেকটি অংশ হোমনা উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান মোল্লা ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম জহরকে আগামী নেতৃত্বের কান্ডারি মনে করছেন। আজিজ ও জহর দুইজনই বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশি। বি.এন.পি’র অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন শ্রমিক দলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক, কুমিল্লা উত্তর জেলার সভাপতি ও হোমনা উপজেলা বি.এন.পি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি সাবেক ছাত্র নেতা এ.কে.এম. ফজলুল হক মোল্লা, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও হোমনা উপজেলা বিএনপি সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মাফুজুল ইসলাম, বিএনপি নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক ছাত্র নেতা মো. আখতার হোসেন।

বি.এন.পি. থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ছাত্র নেতা ও কেন্দ্রীয় শ্রমিক দলের যুগ্ম সম্পাদক এ.কে.এম. ফজলুল হক মোল্লা বলেন, এর আগেও ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে আমি মনোনয়ন চেয়ে ছিলাম। এবারও মনোনয়ন চাইবো আমার বিশ্বাস দল আমাকে মনোনয়ন দিবে এবং মনোনয়ন পেলে আমি সফল হব ইনশাল্লাহ।

বি.এন.পি’র নির্বাহী কমিটির সদস্য ও হোমনা উপজেলা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহফুজুল ইসলাম বলেন, দলের দুর্দিনে চাওয়া-পাওয়াটা আমার কাছে মুখ্য বিষয় নয়। সংগঠনের জন্ম লগ্ন থেকে কাজ করে যাচ্ছি দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তাহলে কাজ করতে আপত্তি নাই।

হোমনা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও দলের সেক্রেটারী অ্যাড. আজিজুর রহমান মোল্লা বলেন, ছাত্র জীবন থেকে এ পর্যন্ত অধিকার বঞ্চিত মানুষের জন্য কাজ করে এসেছি। বি.এন.পি. ও এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে নেতৃবৃন্দ যদি মনোনয়ন দেয় সেখানে আমার কাজ করতে কোনো কৃপণতা থাকবেনা। এছাড়া অন্য কাউকে মনোনিত করলে তার পক্ষেও কাজ করতে কোনো আপত্তি নেই।

তিতাস বিএনপি নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আখতার হোসেন বলেন, দেশ, দল ও এলাকাবাসীকে ভালবাসি বলেই বি.এন.পি. থেকে মনোনয়ন চাই। পার্লামেন্টারী বোর্ড আমাকে মনোনীত করলেও কাজ করব না করলেও কাজ করব। তবে যারা বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন তাদেরকে নিয়ে দলের হাই কমান্ড বসে আলোচনার মাধ্যমে প্রার্থী নির্ধারণ করলে দলের জন্য উপকার হবে।

জাতীয় পার্টিঃ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন মহাজোট প্রার্থী তথা জাতীয় পার্টির কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আমির হোসেন ভূইয়া। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি জাতীয় পার্টি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। অনেকে অভিমত প্রকাশ করে বলেছেন বিগত ৫ই জানুয়ারীর মত নির্বাচন এ আসনে হতে দেবে না এখানকার রাজনিতিকরা।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহাজোটের সংসদ সদস্য মো. আমির হোসেন ভূইয়া বলেন, আমরা ৩শ আসন থেকে নির্বাচন করবো। সে হিসেবে কুমিল্লা-২ আসনে আমি জাতীয় পার্টির একক প্রার্থী। তবে মহাজোট আমার ত্যাগ ও পরিশ্রম মূল্যায়ণ করে আমাকে আবারও মনোনয়ন দিবে এটা আমার দৃঢ় বিশ্বাস। তিনি আরো বলেন, এই আসনে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হলে আপামর সাধারণ জনগণ লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দিয়েই আমাকে নির্বাচিত করবে ইনশাল্লাহ। কারণ, এলাকার মানুষ এলাকার উন্নয়নে বিশ্বাসী। আমি এখানে ৩টি কলেজ সরকারী করেছি। যাতায়াত ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সফলতা এসেছে তিতাস-দাউদকান্দি গোমতী নদীর উপরসহ ৪টি সেতুর উদ্বোধন। সেতুগুলো হল জিয়ারকান্দি, মৌটুপি, শিব পুর ও হোমনার হাতির খাল। হোমনা-তিতাসে শত ভাগ বিদ্যুতায়ন করা হয়েছে। বিগত সময়ে উন্নয়নের সর্বক্ষেত্রে প্রায় ৫শ কোটি টাকার বরাদ্দ কাজে লাগিয়েছেন বলে তিনি জানান।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs