সর্বশেষ সংবাদ :

মেডিকেল বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী খালেদা জিয়ার চিকিৎসা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Share Button
রিপোর্ট:-দৈনিক মুক্তকন্ঠ,
০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮। সময়: ০৮,২০,PM
মেডিকেল বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষায় আবারও মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হবে। এ বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী জেল কোডের আওতায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
রবিবার সচিবালয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের নেতৃত্বে সাত সদস্যের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকের পর মন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের নেতৃত্বে তাদের স্থায়ী কমিটির সাত সদস্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এসেছিলেন। তাদের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে অন্তরীণ রয়েছেন, তার স্বাস্থ্য সম্পর্কে কিছু রিকোয়েস্ট লিখিত আকারে করেছেন। তিনি বলেন,তারা জানিয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া অসুস্থ এবং তার অসুস্থতার মাত্রা বেড়ে যাচ্ছে। এর আগে যেরকম রিকোয়েস্ট করেছিলেন অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য। এবার লিখিত দিয়েছেন। আমরা লিখিত আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সচিব মহোদয় এবং আইজি প্রিজনকে এখনই দায়িত্ব দিয়েছি। তিনি বলেন,যেসব বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য একটি বোর্ড গঠন করা হয়েছিল, একইভাবে তাকে যারা চিকিৎসা করতেন এবং আমাদের সরকারি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা মিলে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবেন। তাদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সুপারিশ অনুযায়ী আমাদের নীতিমালার আওতায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহণ করব, যদি প্রয়োজন হয়।
বিএনপি চেয়ারপারসন আর্থাইটিসে ভুগছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন,তাকে সেবা করার জন্য একজনকে আমরা কারাগারে অ্যালাউ করেছি। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী যা যা প্রয়োজন আমরা কিন্তু সবই করে যাচ্ছি। কারাগারে একজন ফিজিওথেরাপিস্ট একদিন পর একদিন থেরাপি দিয়ে যাচ্ছেন। প্রায় প্রতি সপ্তাহে আমাদের চিকিৎসকরা তাকে পরীক্ষা করছেন। তারা (বিএনপি নেতারা) যে কথাটি বলছেন, তারা মনে করছেন বেগম জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হচ্ছে। সেজন্য তাকে আবারও ইউনাইটেড হাসপাতালের কথা বলছেন, এবার সঙ্গে অ্যাপোলো হাসপাতালের কথাও বলেছেন। কবে নাগাদ বোর্ড গঠিত হবে- জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সচিব ও আইজি প্রিজনকে বলে দিয়েছি, তারা দুইজন বসে ব্যবস্থা নেবেন, খুব শিগগিরই করব।
সরকারি হাসপাতালের বাইরের নেয়ার সুযোগ আছে কি না- জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান খান বলেন, নীতিমালা অনুযায়ী তাকে সরকারি হাসাপতালে নেয়া হবে। এটাই আমাদের জেল কোড অনুযায়ী ব্যবস্থা। দেশের বড় বড় হাসপাতালগুলো কিন্তু সরকারি হাসপাতাল। একজন মানুষ কোন স্থানে চিকিৎসা নিতে কমফোর্ট ফিল করতে পারে, সেই সুযোগ আছে কি না- জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জেলখানার কোড অনুযায়ী এই ধরনের বিবেচনার কোনো স্কোপ নেই। এখন তারা যেটা বলেছেন, রোগীটা কতখানি সিরিয়াস সেটা আমরা পরীক্ষা করে বসে সিদ্ধান্ত নেব।
অন্য কোনো বিষয় নিয়ে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে কথা হয়েছে কি না- এ বিষয়ে আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘অন্য কোনো বিষয় নিয়ে তাদের সঙ্গে আজকে কথা হয়নি।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs