সর্বশেষ সংবাদ :

প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য : লতিফ সিদ্দিকী পাগলের বংশধর

Share Button
image_136268.hasina-27
রিপোর্টারঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম,ঢাকা
০২ অক্টোবর ২০১৪
লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এবার তাঁকে পাগলের বংশধর বলে মন্তব্য করেছেন। হঠাত্ লতিফ সিদ্দিকীর এ বক্তব্য নতুন ষড়যন্ত্রের অংশ কি না তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেন তিনি। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ দলের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে এ মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা। সাক্ষাতে উপস্থিত থাকা একাধিক নেতা এ তথ্য জানান।
এর আগে সকালে সিলেট বিমানবন্দরে দলীয় নেতাদের সঙ্গে আলাপকালে লতিফ সিদ্দিকীকে উদ্দেশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ পরিবারের সবাই নিয়ন্ত্রণহীন।
আওয়ামী লীগের এক নেতা জানান, রাতে শেখ হাসিনা বলেন, সব কিছুই যখন ঠিকঠাকভাবে চলছিল তখনই লতিফ সিদ্দিকী কেন এ ধরনের মন্তব্য করলেন তা খুঁজে বের করা উচিত। এর সঙ্গে নানা যোগসূত্র থাকতে পারে বলেও আশঙ্কা করেন প্রধানমন্ত্রী।
সূত্র মতে, তাবলিগ-জামাতের পক্ষে অবস্থান নিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, তাদের নিয়ে এ ধরনের মন্তব্য কোনোভাবেই বরদাশত করা যায় না। বঙ্গবন্ধু তাবলিগ-জামাতকে ধর্ম প্রচারে সহায়তা করেছেন। ওই সময় আশরাফ বলেন, ‘তাবলিগ-জামাত ও জামায়াতের মধ্যে কোনো সম্পর্ক নেই। তাবলিগ-জামাতে আমাদের নেতা-কর্মীও আছে। তাদের নিয়ে লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্য উদ্ভট, অনাহৃত।’
দলীয় ওই সূত্রে জানা যায়, শেখ হাসিনা বৈঠকে আশরাফকে শিগগিরই দলের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা ডাকার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, লতিফ সিদ্দিকীর ব্যাপারে সদ্ধিান্ত নেওয়াই আছে। কার্যনির্বাহী সংসদের সভার মধ্য দিয়ে সবার মতামতের মাধ্যমে তাঁর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা বাস্তবায়ন করা হবে।
সূত্র মতে, লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্যের পর উদ্ভূত পরিস্থিতি সম্পর্কে সৈয়দ আশরাফ দলীয় সভাপতিকে অবহিত করেন। একপর্যায়ে তিনি বলেন, তাবলিগ-জামাত জামায়াতে ইসলামীবিরোধী। তাবলিগ-জামাত শুধু ধর্ম প্রচারে কাজ করে। এর সঙ্গে জামায়াতকে মেলানো তাঁর ঠিক হয়নি।
সূত্র আরো জানায়, ঈদের পরে ১০ বা ১১ অক্টোবর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা হতে পারে।
জানা যায়, শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষতে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে ছিলেন জাহাঙ্গীর কবির নানক, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ড. হাছান মাহমুদ, অসীম কুমার উকিল, আফজাল হোসেন, পঙ্কজ দেবনাথ প্রমুখ

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs