সর্বশেষ সংবাদ :

কুমিল্লার হোমনায় বিএনপি’র ইফতার মাহফিল মানুষের ঢল

Share Button

রিপোর্ট:-দৈনিক মুক্তকন্ঠ,এমএ কাশেম ভূঁইয়া
০২ জুন, ২০১৮,সময়: ০৭,০৫,PM,

কুমিল্লার হোমনায় আবারো প্রমান করলো প্রয়াত এমকে আনোয়ার স্যার মানুষের কত আপনজন ছিলেন। তার স্মরণে হোমনা উপজেলা বাসভবনে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে বিভিন্ন গ্রাম থেকে আগত নেতাকর্মীসহ সাধারন মানুষের ঢল নামে। কিন্তু সাবেক কৃষি মন্ত্রী প্রয়াত এমকে আনোয়ার স্যারের ভালবাসায় আসলেও আয়োজকদের ভূলে অধিকাংশ নেতাকর্মী ও মুসল্লিরা তাবারুক না পাওয়ায় হতাশ হয়ে ফিরে যেতে হয় এসব জনসাধারণকে।
শীর্ষ নেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এক থেকে দেড় হাজার মানুষ হতে পারে; অথচ সেখানে ৩ হাজারেরও বেশি মানুষের সমাগম হয়। আমরা ১২শ তাবারুকের প্যাকেট করেছি। কিন্তু ৫শতাধিক প্যাকেট বিতরণের গন্ডগোল শুরু হয়। এরপর আবারো দেয়ার চেষ্টা হলে মানুষের হুমড়ি খাওয়া পরিবেশের সৃষ্টি হয়। এতে যেকোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলে তাবারুক বিতরণ বন্ধ করে দেয়া হয়।
এদিকে উপস্থিত মুসল্লিদের মধ্যে ৫শতাধিক ইফতার বিতরণের পরই উপজেলা বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি একেএম ফজলুল হক মোল্লা মাইকে ঘোষনা দেয়ায় উপস্থিতিদের মধ্যে হতাশা হট্টগোল আরো বেড়ে যায়। পরে অনেকেই তাবারুক না নিয়ে অভিমানে ফিরে যেতে দেখা যায়। যাবার সময় আয়োজন কারীদের বাজে মন্তব্য করতেও দ্বিধা করেনী সাধারণ মুসল্লিসহ খোদ সিনিয়র নেতারাই। তারা বলছেন, একেএম ফজলুল হক মোল্লা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হওয়াতেই আয়োজনে তালগোল হয়েছে। তবে বিষয়টি ভিন্ন ষড়যন্ত্র বলেও মনে করছেন দলের শীর্ষ এই নেতারা।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে সিনিয়র বেশ কয়েকজন নেতা বলেন, আসলে স্যারের জীবদ্দশায় অত্যন্ত সুচিন্তিতভাবে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী অনুষ্ঠান হতো। তাতে নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ উপভোগ করতো। আজ দলের সভাপতি মাহফুজুর রহমান মাষ্টারও নেই। কিছু মানুষ অল্পে অতিবেশি পেয়ে স্যারের সুনাম পন্ড করতেই এরকম একটি অগোছালো আয়োজন করে। আজ অধিকাংশ জনগণই হতাশ তাদের আয়োজনে।
তবে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি একেএম ফজলুল হক মোল্লার সাথে কথা বলতে চাইলেও তিনি অন্য দুজন সিনিয়র সাংবাদিকের সাথে কথা বলে চলে যাওয়ায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs