সর্বশেষ সংবাদ :

কুমিল্লার মুরাদনগরে বজ্রপাতে ২ জনসহ ৪ জনের অপমৃত্যু

Share Button

 

কুমিল্লায় বজ্রপাতে সেলিম ও ইমন নামে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। চৌদ্দগ্রাম থেকে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক যুবকের থেতলানো লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া বুড়িচংয়ে বাস চাপায় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে বুধবার বিকেলে মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামে। নিহত দুইজন হলেন- সেলিম (১৭) ও ইমন (১৫)।

পুলিশ জানায়, বুধবার বিকাল পৌনে ৩টার দিকে মুরাদনগরের যাত্রাপুর এলাকায় বৃষ্টির সময় জমি থেকে ধান কেটে বাড়ি ফেরার পথে বজ্রপাতে সেলিম ও ইমন মারা যায়। সেলিম যাত্রাপুর গ্রামের ফিরোজ মিয়ার ছেলে এবং ইমন একই গ্রামের আবদুল হামিদের ছেলে।

মুরাদনগর থানার ওসি একেএম মনজুর আলম দুই জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে চৌদ্দগ্রামে এক অজ্ঞাত পরিচয় যুবকের (৩৬) থেতলানো লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রাম পৌর এলাকার অফবিট রিসোর্ট এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত যুবকের পরিচয় এখন পর্যন্ত জানা যায়নি।

চৌদ্দগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, বুধবার মহাসড়কে ডিউটিরত অবস্থায় লাশটি দেখে উদ্ধার করেছে পুলিশ। যুবকের শরীরের বিভিন্ন অংশ থেতলানো রয়েছে। ময়নাতদন্ত করার জন্য মৃত দেহটি কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

অপরদিকে বুড়িচংয়ে বাস চাপায় ফারুক হোসেন (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (সকালে) বুড়িচং নিমসার এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের রাস্তা পার হওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। কুমিল্লা হাইওয়ে ময়নামতি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুর রহমান ঘতনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নিহত ফারুক হোসেন কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার বরকামতা গ্রামের মৃত তারু মিয়ার ছেলে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে নিমসার বাজার এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের রাস্তা পার হওয়ার সময় দ্রুতগতির একটি যাত্রীবাহী বাস ফারুককে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যায়।

ওসি জানান, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে। এ ঘটনায় ওই যাত্রীবাহী বাসের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। বাস পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs