সর্বশেষ সংবাদ :

বি-বাড়ীয়ার বাঞ্ছারামপুরের আখি ও তিতাস উপজেলার হাসান, নব দম্পত্তি নেপালে বিমান দূর্ঘটনায় নিহত

Share Button

রিপোর্ট:-দৈনিক মুক্তকন্ঠ,
১৩ মার্চ, ২০১৮ সময়: ০৬,০০,PM,

লাশে পোঁড়া গন্ধ। পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে সোনার শরীর। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রুপসদী দক্ষিণ পাড়ার বাবা রফিকুল ইসলাম পেশকার মেয়েকে ছোট থেকে আদর করে ডাকতেন সোনামনি বলে।

সেই নাম আজো রয়ে গেছে। আসল নাম আখি মনি হলেও সবাই ভালোবেসে ডাকতো সোনামনি। সেই সোনামনির লাশ যখন আজ সনাক্ত করা হয়, তখনও তার হাতে বিয়ের মেহেদীর রং লেগে ছিলো। পুড়েঁ যাওয়া শরীর চেনা যাচ্ছিলো না। শেষে বিয়ের মেহেদীর রং ও বিয়ের আংটি দেখে বাবা পেশকার মিয়া আজ বিশেষ বিমানে করে নেপাল যাবার পর লাশ সনাক্ত করেন।জানা গেছে, পুড়েঁ যাওয়া মেয়ের শরীর দেখে বাবা ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারান। পরে নেপালের পুলিশ ও চিকিৎসকরা তাকে সেবা ও শান্তনা দেন।

উল্লেখ্য, নেপালে হানিমুন করতে গিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রুপসদী গ্রামের রফিকুল ইসলাম পেশকার মিয়ার মেয়ে আঁখি মনি ও তার স্বামী আমেরিকা প্রবাসী মেহেদী হাসান বিমান দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। চলতি মার্চ মাসের ৩ তারিখে তাদের বিয়ে হয়েছিল। জানাগেছে মেহেদী হাসান আমেরিকা প্রবাসী ও তিতাস উপজেলার বাতাকান্দি গ্রামের ব্রিগ্রেডিয়ার মো. নাসির সারোয়ার এর পুত্র। নবদম্পত্তি বিয়ের পর উঠেছিলো ঢাকার ধানমন্ডির একটি নতুন ফ্লাটে। আখি মনিদের বসতবাড়ি রুপসদীর দক্ষিণপাড়ার সরকার বাড়ি।

রামপুরায় বসবাসরত পেশকার মিয়ার পরিবারসূত্রে জানা গেছে,তাদের মেয়ে মেধাবী আখিমনি মাষ্টার্স পাশ করে পরিবারের সম্মতিতে গত ৩ মার্চ বেশ ধূমধাম করে বিয়ে হয়।মেয়ের ইচ্ছে অনুযায়ী হিমালয়কন্যার দেশ নেপালে যাওয়ার জন্য গত সপ্তাহে টিকিট বুকিং দেয়া ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের বিমানে। নেপাল সরকারের দেয়া মৃতদের তালিকার ৩৭ ও ৩৮ নং সিরিয়ালে রয়েছে এই হতভাগ্যদের নামের তালিকা।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs