সর্বশেষ সংবাদ :

বারবার আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের অবস্থান পরিবর্তন

Share Button

 49419_f2

স্টাফ রিপোর্টার: জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের মৃত্যুদ- কার্যকর প্রশ্নে বারবার নিজের অবস্থান পরিবর্তন করছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। গতকালই দুই ধরনের বক্তব্য দিয়েছেন তিনি। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, প্রকাশিত যে রায় আছে, তার ওপরই আমাদের ব্যবস্থা নিতে হবে। তবে সন্ধ্যা নাগাদ নিজের অবস্থান বদলে ফেলেন তিনি। এ সময় রাজধানীর একটি হোটেলে সম্পত্তি নিবন্ধন সারগ্রন্থ প্রকাশনা অনুষ্ঠান শেষে আইনমন্ত্রী বলেন, অন্ততপক্ষে সুপ্রিম কোর্টের সংক্ষিপ্ত রায়ের কপি আইনানুগ প্রক্রিয়ায় কারাগারে না পৌঁছানো পর্যন্ত কামারুজ্জামানের মৃত্যুদ- কার্যকর করা উচিত হবে না। গত ৩রা নভেম্বর সংখ্যাগরিষ্ঠ মতের ভিত্তিতে কামারুজ্জামানের মৃত্যুদ- বহাল রাখে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এরপর থেকেই এ রায় কখন কার্যকর হবে তা নিয়ে বিতর্ক চলে আসছে। ৫ই নভেম্বর নিজ বাসায় এক সংবাদ সম্মেলনে আইনমন্ত্রী বলেন, কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায় কার্যকরে প্রস্তুতি নিতে কারাকর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে। আইনমন্ত্রী এবং এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম দুই জনই বলেন, কামারুজ্জামানের রিভিউ আবেদন দায়েরের কোন সুযোগ নেই। যদিও দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মামলার রায়ের পর আইনমন্ত্রী বলেছিলেন, কাদের মোল্লার রিভিউ খারিজের রায় পাওয়ার পরই পরিষ্কার হবে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় রিভিউ চলবে কিনা। সে রায় এখনও পাওয়া যায়নি। গতকাল সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে এক সেমিনার শেষে আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, প্রেসিডেন্টের কাছে কামারুজ্জামানের প্রাণভিক্ষা চাওয়ার সময়সীমা শেষ হবে রোববার। প্রাণভিক্ষা চাওয়ার সময় শেষের পর কামারুজ্জামানের দ- কার্যকর হতে পারে কি-এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী তখন বলেন, তিনি জানেন না। কারাবিধির ৯৯১ ধারাটি উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিচারিক আদালতের দেয়া মৃত্যুদ- উচ্চ আদালত বহাল রাখলে সর্বশেষ এ রায়টি আসামিকে অবহিত করতে হয়। আর এই অবহিত করার বিষয়টি কাগজপত্রে জানাতে হবে তা নয়। অবহিত করা হয়েছে কিনা সেটিই বড় বিষয়। অবহিত হওয়ার পর ওই আসামি প্রাণভিক্ষার জন্য সাত দিন সময় পান। এটা সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা। আপিল বিভাগের আদেশ কারাগারে পৌঁছায়নি তাহলে কিভাবে কামারুজ্জামানকে ক্ষমা চাইতে বলা হলো- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আদেশ যায়নি মানে কি? তাকে সর্বশেষ রায় সম্পর্কে জানানো হয়েছে। আমি যত দূর জেনেছি কারা কর্তৃপক্ষ কামারুজ্জামানকে ট্রাইব্যুনালের মৃত্যুদ-ের রায় আপিল বিভাগ বহাল রেখেছে এটা অবহিত করেছে। তবে কারাগার সূত্রে জানা গেছে, আদেশের কপি কারাগারে না পৌঁছানোয় আনুষ্ঠানিকভাবে কামারুজ্জামানকে কিছুই জানানো হয়নি।
তিনি আরও বলেন, কেউ বলছেন, জেল কোড কার্যকর হবে, কেউ বলছেন কার্যকর হবে না। আমি জেল কর্তৃপক্ষকে বলেছিলাম, ফাঁসি কার্যকরের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রাখতে। কামারুজ্জামানের ক্ষেত্রে রিভিউর বিধান প্রযোজ্য হবে না বলেও মত দেন তিনি।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs