সর্বশেষ সংবাদ :

কুমিল্লার বিশ্বরোড আলেখারচরে অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষোভ করে

Share Button

11c5nuddagram_photo-01

রিপোর্টঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম
কুমিল্লা, ১ নভেম্বর ২০১৪।

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীকে ফাঁসির রায়ের প্রতিবাদে জামায়াতের ডাকা রবিবারের হরতাল কুমিল্লায় পালিত হয়েছে। ৩ দিনের হরতালের ২য় দফার প্রথম দিন অগ্নিসংযোগ, মিছিল আর পিকেটিংয়ের মধ্যদিয়ে হরতাল পালিত হয়। কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে শনিবার রাতে জামায়াত-শিবিরের ১০ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার কার্যালয়ের গোয়েন্দা কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান।
হরতালে জামায়াতের নেতাকর্মীরা নগরীর বিভিন্ন সড়কে মিছিল ও অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষোভ করেছে। হরতাল চলাকালে সকালে মহানগরীর লাকসাম রোডে ঝটিকা মিছিল করেছে জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মীরা। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার আলেখারচর চক্ষু হাসপাতালের সামনে পুলিশের সঙ্গে শিবিরকর্মীদের ধাওয়াপাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। নগরীর ধর্মপুর এলাকায় টায়ারে অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষোভ করেছে হরতালকারীরা।
হরতালে নগরীর অধিকাংশ দোকানপাট খোলা ছিলো। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকলেও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম ছিলো। আর্থিক প্রতিষ্ঠানে লেনদেন হয়েছে। রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক ছিল।
মহানগরীর বাস টার্মিনালগুলো থেকে দূরপাল্লার কোনো যানবাহন ছেড়ে যায়নি। তবে নগরীতে ছোট ছোট যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক ছিল। মহাসড়কে দুই একটি পণ্যবাহী ট্রাক চলাচল করলেও আতঙ্কের কারণে যাত্রীবাহী বাস চলাচল করেনি। এতে স্বাভাবিক জনজীবন ব্যাহত হচ্ছে।
সকালে নগরীর লাকসাম রোড, টমছম ব্রিজ, ধর্মপুর, চকবাজার এবং জেলার বুড়িচংয়ের সৈয়দপুর, চৌদ্দগ্রাম, দাউদকান্দিসহ ১৬ উপজেলায় ঝটিকা মিছিল করেছে হরতাল সমর্থকরা। এদিকে নগরীর কাশেমুল উলুম মাদ্রাসার সামনে শিবিরকর্মীরা একটি ঝটিকা মিছিল বের করলে পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
হরতালে কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার সমর্থিত নেতাকর্মীরা হরতাল বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল করেছে। এ ছাড়া দুপুরে মহানগরীর কান্দিরপাড়ে হরতাল বিরোধী মিছিল করেছে মহানগর যুবলীগ। নগরীতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
সদর আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার সমর্থিত নেতাকর্মীদের হরতাল বিরোধী বিক্ষোভ মিছিলের নেতৃত্ব দেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবদুর রউফ, সাবেক জিএস আবদুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ, মহানগর আ’লীগ নেতা ও কুমিল্লা কাবের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত, সিটি কাউন্সিলর জমির উদ্দিন খান জম্পি, শ্রমিকলীগ নেতা হাসান খসরু, মহানগর যুবলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ, আ’লীগ নেতা আবদুল আলীম, কাঞ্চন, সাবেক কাউন্সিলর ইয়াসিন মিয়া, হেলাল উদ্দিন, কাইয়ুম খান বাবুল, ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মোজাম্মেল হক, মামুনুর রশিদ মামুন, সৈয়দ মোঃ সোহেল, আ’লীগ নেতা শাহ আলম, মহানগর যুবলীগ নেতা হাসান ইমাম হাসান, সাহেরীন আল মাহমুদ সাহের, হাবিবুল আল আমিন সাদী, সফিউল আলম স্বপন, বোরহান মাহমুদ কামরুল, পলিকেটনিকের সাবেক ভিপি জহিরুল ইসলাম রিন্টু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সালেহ আহম্মেদ রাসেল, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল ইসলাম শাওন প্রমুখ।
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) কুমিল্লা ১০ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল. মো. জাকির হোসেন জানিয়েছেন, দিনের শুরু থেকে হরতাল পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে জেলার চৌদ্দগ্রামে ১ প্লাটুন, মনোহরগঞ্জে ১ প্লাটুন, বুড়িচংয়ের নিমসার এলাকায় ১ প্লাটুন এবং সদর উপজেলার জন্য ১ প্লাটুন বিজিবি সদস্য রির্জাভ রাখা হয়েছে।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs