সর্বশেষ সংবাদ :

কুমিল্লা-সিলেট সড়কে মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবহন !

Share Button

রিপোর্ট:-দৈনিক মুক্তকন্ঠ,
৩০ জুলাই ২০১৭। সময়: ০৭.২০.PM

কুমিল্লা সিলেট সড়কের বেহাল দশা, সড়কের খানাখন্দ জনজীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলছে। সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় এটি এখন জন দুঃখের সড়কে পরিণতি হয়েছে।এতে জনদুর্ভোগ চরমে। গত কয়েক দিনের বর্ষণে সড়কের বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত আর খানা খন্দক সৃষ্টি হয়েছে। এতে বেহাল অবস্থা রাস্তার প্রায় প্রতিদিনই যানবাহন বিকল হচ্ছে পাশাপাশি বাড়ছে দুর্ঘটনার আশংকা।এই সড়কের বিভিন্ন স্থানে বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যানচলাচল বন্ধের উপক্রম হয়েছে।গতকাল রাত্রে যানজট লাগছে শুক্রবার দুপুরে ১২টায় পর্য়ন্ত চলাচলকারীরা শিকার হয়েছে।ওই জনপদে চলাচলকারীদের খানাখন্দের লক্কড় ঝক্কর ঝামেলা মাথায় নিয়ে প্রতিদিন ছুটছেন গন্তব্যে।এ রাস্তার দুর্ভোগের কথা ইতিমধ্যে সরকারি ও বিরোধীদলীয় জনসভা সমাবেশে চাউর শেষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক শোভা পাচ্ছে।তাতেও ভুক্তভোগীদের প্রতিকার না হওয়ার কথা এলাকায় সরব রয়েছে।

সড়কের দুপার্শ্বে বাসিন্দা, এলাকাবাসী, পথচারী, পরিবহন শ্রমিক সূত্রে জানায়, সড়ক ও জনপথ বিভাগ এর ধীর গতি এবং অবহেলার কারনে কুমিল্লা সিলেট সড়কের এই অবস্থা।বড় বড় গর্ত তার উপর গত কয়েক দিনের বর্ষণে কুটি থেকে ময়নামতিবাজার পর্যন্ত প্রায় ৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত রয়েছে ভাঙ্গা রাস্তা ও বড় ,বড় গর্ত ।সড়কে পাকা অংশ উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।এখন কুটি থেকে ময়নামতিবাজার পর্যন্ত খানাখন্দের স্বর্গে পরিণত হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি ময়নামতি, দেবপুর, কংশনগর, বারেরা, ভিল্লাল, চরবাকর, বেগনাবাদ, দেবিদ্বার নিউমার্কেট, চেয়ারম্যানবাড়ি, সাইলচর, মিরপুর, রেয়াজউদ্দিন পাইলট স্কুলের সামনে সহ বিভিন্ন জায়গায় অসংখ্য ছোট বড় গর্তেও সৃষ্টি হয়ে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে চলাচলকারীদের।

কংশনগরের ব্যবসায়ীরা বলেন, প্রতিবছর বর্ষার সময় সড়কটি বিভিন্ন স্থানে মেরামতের কাজ করা হলেও খুব বেশিদিন টিকছে না। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এর গাফিলতি ও নিম্ন মানের কাজের জন্য এক বছরে মাথায় তা স্বরূপে ফিরে যায়। এর পর সড়কটির পিচের প্রলেপ নষ্ট হয়ে বিভিন্ন স্থানে কাঁচা সড়কে রূপ নেয়। ওই ক্ষতবিক্ষত সড়কটিতে ভারি যানবাহনের দাপিয়ে বেড়ানোয় বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয় বিশাল বিশাল গর্তের। ওই দুরবস্থা শুষ্ক মৌসুমে যেনতেনভাবে পার হলেও, বর্ষার আগমনে সড়কটি গর্তে পানি জমে যানচলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।তাই সবার দাবি দ্রুত সময়ের মধ্যে কুটি থেকে ময়ানমতি বাজার পর্যন্ত সড়কে সংস্কার কাজ শুরু করে চলাচলকারীদের যানবাহন ও জনগনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ।

গাড়ির চালকেরা জানান, ভাঙ্গা রাস্তায় গাড়ি চালানোর ফলে তাদের গাড়ির যন্ত্রাংশের ক্ষতি হচ্ছে। অনেক সময় গাড়ির নিয়ন্ত্রণ রাখাও কঠিন হয়ে পড়ে। গত বছরে সড়কে সংস্কার করা হলেও তা ছিল আইওয়াশ মতো দায়সারা গোছের কাজ। এদিকে এ সড়কে পথ যানবাহন চলতে গিয়ে বহু লোক মৃত্যুসহ অনেকে পংগুত্ব বরণ করেছেন। এ অবস্থার মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করায় প্রায়ই বিকল হয়ে যাচ্ছে যানবাহন। এতে অতিরিক্ত সময় যেমন ব্যয় হচ্ছে, তেমনি বাড়ছে দুর্ঘটনার আশংকা সাথে চরম যানজট ।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs