সর্বশেষ সংবাদ :

কুমিল্লার বুড়িচং এর স্কুল ছাত্র নাজমুলকে যে ভাবে হত্যা করা হয়

Share Button

comilla-atok--pic-23-10-14

রিপোর্টঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর ২০১৪।

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কোরপাই এলাকায় বহুল আলোচিত স্কুল ছাত্র নাজমুল হত্যা মামলার প্রধান আসামি মো.সুমন মিয়া (২৪) কে বৃহস্পতিবার কুমিল্লার কাপ্তান বাজার থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গত ১৭ অক্টোবর রাতে নাজমুল হত্যার পর নিহত নাজমুলের পিতা আব্দুর রব বাদী হয়ে সুমনকে প্রধান আসামী করে বুড়িচং থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যার ৬ দিন পর সুমনকে বুড়িচং থানা পুলিশ মোবাইল ট্র্যাকিং এর মাধ্যমে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার কুমিল্লা নগরীর কাপ্তান বাজার থেকে গ্রেফতার করে।

হত্যাকারী সুমন জানায়, ১৬ অক্টোবর বরুড়া এলাকার আবুল বাশার তাদেরকে সিএনজি ছিনতাইয়ের উদ্দেশে ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে ভাড়া করে। বাশারের কথা মতো ১৭ অক্টোবর সন্ধায় চান্দিনা ষ্টেশন থেকে নাজমুলের সিএনজি বরুড়া যাওয়ার কথা বলে ভাড়া করে তারা। সিএনজি ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা অনুযায়ী সুবিধাজনক স্থান না পাওয়ায় তারা সিএনজি নিয়ে গভীর রাত পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গায় ঘুরাঘুরি করে। রাত যখন ১টা বাজে তখন তারা কোরপাই পিহর সংলগ্ন সান্তামুড়া নামক স্থানে নাজমূলকে সিএনজি থামাতে বলে। সিএনজি থামানোর পর তিন জন ধরে নাজমুলের চোখ বেধে ফেলে। নাজমুল তখন দস্তা-দস্তি করতে চাইলে তখন তার হাত-পা চেপে ধরে ধারালো ছুরি দিয়ে জবাই করে হত্যা করা হয় তাকে। হত্যার পর নাজমুলের সিএনজিটি আবুল বাশারের অফিস কোরপাই (ক্যাবল টিভি) তে রাখা হয়। হত্যার ঘটনা এলাকায় জানাজানি হলে হত্যার পর দিন রাতেই সিএনজিটি পাশের ডোবায় ফেলে দেয়া হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই নজরুল ইসলাম জানান, এই হত্যা মামলার প্রধান আসামি সুমনকে মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং এর মাধ্যমে নগরীর কাপ্তান বাজার এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করা হয়।

নিহত নাজমুলের পিতা আব্দুর রব দ্রুততম সময়ে আসামী গ্রেফতার হওয়ায় সন্তুষ্ট প্রকাশ করেন । তিনি তার ছেলে হত্যাকারীদের ফাঁসি কামনা করেন।

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs