সর্বশেষ সংবাদ :

মানবতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীরা যেন রাষ্ট্রপতির ক্ষমা না পান’

Share Button
94901_1
রিপোর্টঃ-মোঃ সফিকুর রহমান সেলিম
ঢাকা, ১৯ অক্টোবর ২০১৪।
একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত যুদ্ধাপরাধ বা মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে শাস্তি পাওয়া ব্যক্তিকে যাতে রাষ্ট্রপতি সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করতে না পারেন সে জন্য সংবিধান সংশোধন করার পক্ষে মত দিয়েছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। তিনি বলেন, সংবিধানের ৪৯ অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে যুদ্ধাপরাধী বা মানবতাবিরোধী অপরাধীকে ক্ষমা করা হবে দুঃখজনক। সংবিধানের ৪৯ অুনচ্ছেদের দোহাই দিয়ে যাতে কোনো যুদ্ধাপরাধী ক্ষমা না পান সে জন্য সংবিধান সংশোধনের বিষয় চিন্তা করতে হবে।
গতকাল রবিবার দুই দফায় সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন আইনমন্ত্রী। প্রথম দফায় দুপুরে বিয়াম মিলনায়তনে যুগ্ম জেলা জজ ও সমমর্যাদার বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের বিচারকাজে দক্ষতা বাড়ানো-সংক্রান্ত এক অনুষ্ঠানের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা বলেন। এ ছাড়া গণজাগরণ মঞ্চের স্মারকলিপি পাওয়ার পর সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে দ্বিতীয়বার এ কথা বলেন তিনি।
গণজাগরণ মঞ্চের একাংশের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকারের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল গতকাল তিন দফা দাবি সংবলিত একটি স্মারকলিপি দেয় আইনমন্ত্রীকে। মন্ত্রীর পক্ষে সচিবালয়ের ৫ নম্বর গেটে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল হক। এতে জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে আপিল বিভাগের দেওয়া আমৃত্যু কারাদণ্ড পুনর্বিবেচনার জন্য রিভিউ আবেদন করা, জামায়াতের বিচারের জন্য ট্রাইব্যুনাল আইন সংশোধন করা এবং যুদ্ধাপরাধীকে রাষ্ট্রপতির সাধারণ ক্ষমা করার বিধান রহিত করার দাবি জানানো হয়।
আইনমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের কোনো রাষ্ট্রপতি সংবিধানের ৪৯ অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে মানবতাবিরোধী অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে সাধারণ ক্ষমা করবেন, এটা ভাবতেই গা শিউরে ওঠে। কিন্তু বাস্তব প্রেক্ষাপট হচ্ছে- নিজামী, মুজাহিদ মন্ত্রী হয়েছেন। গাড়িতে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উড়িয়েছেন। তিনি বলেন, সংবিধানের দোহাই দিয়ে যাতে কেউ পার না পেয়ে যায় সে জন্য পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।
জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে আপিল বিভাগের দেওয়া আমৃত্যু কারাদণ্ডের সাজা পুনর্বিবেচনার জন্য রিভিউ আবেদন করা হবে কি না সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘কাদের মোল্লার মামলায় রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেন আপিল বিভাগ। এখনো পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়নি। ফলে ঠিক কী কারণে রিভিউ খারিজ হয়েছে তা পরিষ্কার নয়। এই রায়ের জন্য অপেক্ষা করছি। ওই রায়ের কপি পাওয়ার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

Comments are closed.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs