সর্বশেষ সংবাদ :

দেশে ফিরতে বারণ, আ.লীগ থেকে বাদ পড়ছেন লতিফ সিদ্দিকী

Share Button

শুধু মন্ত্রিসভা থেকেই নয় আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম প্রেসিডিয়াম ও দলের প্রাথমিক সদস্য পদও হারাচ্ছেন বিতর্কিত ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়কমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী। আর এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হলে সংসদ সদস্য পদও হারাবেন তিনি। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী ফোরাম থেকে লতিফ সিদ্দিকীকে দেশে ফিরতে বারণ করে দেওয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়ামের একজন গূরুত্বপূর্ণ সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে দ্য রিপোর্টকে বুধবার রাতে এ তথ্য জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার লন্ডন থেকে ফিরলেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আওয়ামী লীগের ওই প্রেসিডিয়াম সদস্য দ্য রিপোর্টকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকীর ওপর আগে থেকেই অসন্তুষ্ট ছিলেন। বিভিন্ন সময় লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে এলেও ১/১১-এ তার ভূমিকার কারণে শেখ হাসিনা ক্ষমা করেছেন। কিন্তু এবার তিনি যে কাজ করেছেন তাতে শেখ হাসিনা নিজেই মর্মাহত হয়েছেন। আর দেশের জনগণের সেন্টিমেন্টের প্রতি শেখ হাসিনা শ্রদ্ধা দেখাতেই এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন।

লতিফ সিদ্দিকী টাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী উপজেলা থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য। আর তিনি দল থেকে বহিষ্কার হলে এ আসনে উপনির্বাচন হবে। এ আসনে লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে শক্তিশালী প্রার্থী ছিলেন স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠক বিএনপি নেতা শাজাহান সিরাজ।

এ ব্যাপারে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বুধবার আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘তাকে মন্ত্রিসভা থেকে অপসারণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরলেই দলীয় সিদ্ধান্ত দেওয়া হবে। কেননা, প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগেরও প্রধান।’

প্রসঙ্গত, নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে রবিবার সন্ধ্যায় টাঙ্গাইল প্রবাসীদের আয়োজনে এক মতবিনিময় সভায় হজ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেন লতিফ সিদ্দিকী।

ওই মতবিনিময় সভায় তিনি বলেন, ‘আমি জামায়াতে ইসলামের যত বিরোধী, তার চাইতেও হজের ও তাবলীগের বিরোধী। কত ম্যান পাওয়ারটা নষ্ট হয় তোমরা বিবেচনা করে দেখ। হজের জন্য ২০ লাখ মানুষ আজ সৌদিতে গেছে। এদের কোনো কাম নাই। এরা কোনো প্রডাকশনও দিচ্ছে না। শুধু ডিডাকশন করছে, শুধু খাচ্ছে। দেশের টাকা নিয়ে গিয়ে ওদের দিচ্ছে। আব্দুল্লাহপুত্র মুহাম্মদ (সা.) কোরাইশদের আর্থিক সুবিধার জন্য হজ উৎসব চালু করেন।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইটি উপদেষ্টা ও ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সজীব ওয়াজেদ জয় কে? জয় বাংলাদেশ সরকারের কেউ নয়। তার কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার নেই। জয় শুধু উপদেশ দিতে পারে। কিন্তু সিদ্ধান্ত নেওয়ার মালিক সরকার।’

এর আগে গত শনিবার ম্যানহাটনের হোটেল ম্যারিয়ট মার্কিতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ও তার ছেলে জয়ের উপস্থিতিতে বক্তব্য দিতে গিয়ে লতিফ সিদ্দিকী তাদের প্রশংসা করেন। মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ঠিক বিপরীত কথা বলেন এই মন্ত্রী।

93068_1http://dailymuktokontho.com

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Scroll To Top
Bangladesh Affairs